অনলাইন শিক্ষার গুরুত্ব ও পদ্ধতি, ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।

বর্তমান বাংলাদেশে অনলাইন শিক্ষার গুরুত্ব অপরসীম। শিক্ষার্থী, অভিভাবক,  শিক্ষক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য অনলাইন শিক্ষা গ্রহন ও প্রদান পদ্ধতি তুলে ধরা হল, ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।

“সন্তান ১ বছর লেখাপড়া না করলে মূর্খ হবে না,
কিন্তু করোনা ভাইরাস শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছড়িয়ে গেলে
বহু মায়ের কোল খালি হবে”

সংগৃহীত।

ঠিক একই কারণে অনলাইন স্কুল, কলেজ ও ব্যাচের বিকল্প নেই।

তাই, 

শিক্ষার্থীদের বলব অনলাইন ক্লাস গ্রহনের প্রতি যত্নশীল হও।  

(যেকোনো সাবজেক্ট শেখার সুবিধার্থে প্রয়োজনে তুমি MahmudSir.com ব্যবহার করতে পারো। কুইজ পরীক্ষা গুলোতে অংশগ্রহণ করে মজার মজার গল্পের বই অথবা ক্যারিয়ার গাইড বই পেতে পারো। এমনকি কিছু কিছু পরীক্ষাগুলোতে অংশগ্রহণ করে ৯৫% মার্ক পেলে বা ফার্স্ট হলে মাহমুদ স্যার লার্নিং প্লাটফর্মের অনেক দামী দামী কোর্স তুমি সম্পূর্ণ ফ্রী পেতে পারো, পুরস্কার হিসেবে; এমনকি আমাদের বিভিন্ন সাবজেক্ট টিচারের লাইভ কোচিং এ তুমি স্কলারশিপও পেতে পারো অর্থাৎ সম্পূর্ণ ফ্রীতে লাইভ কোচিং করতে পারো।)

অভিভাবকদের প্রতি আবেদন, আপনারা আপনাদের সন্তানের অনলাইন ক্লাস গ্রহনের প্রতি যত্নশীল হোন।

শিক্ষক, স্কুল, কলেজ ও কোচিং সেন্টারগুলোকে বলব। আপনারা একটা ওয়েবসাইট তৈরি করে নিজস্ব লার্নিং প্লাটফরম তৈরি করুন। আপনাদের শিক্ষার্থীদের সহজে শিক্ষাদান করতে।

আপনাদের সবার কথা বিবেচনা করে MahmudSir Learning Platform (MahmudSir.com) তৈরি করা হয়েছে। এখানে, শিক্ষার্থীরা তাদের প্রয়োজনীয় সাবজেক্টের ক্লাসগুলো সহজে বিভিন্ন কোর্স গ্রহন করে বা লাইভ কোচিং ক্লাস এ রেজিস্ট্রেশন করে অনলাইন এ করতে পারবে।

আর শিক্ষক, স্কুল, কলেজ ও কোচিং সেন্টারগুলো আমাদের আইটি সার্ভিস নিয়ে সহজে ৩,৫০০ টাকা খরচ করে নিজের জন্য বা নিজেদের জন্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করিয়ে নিতে পারবে। স্টুডেন্ট পেতে আমরা তাদের ওয়েবসাইটগুলোর মার্কেটিং এর কাজও করে থাকি। সেক্ষেত্রে, আমরা উক্ত শিক্ষক বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে মাসিক ভিত্তিতে নির্দিষ্ট বাজেটের মধ্যে ওয়েবসাইট মার্কেটিং ফি রেখে থাকি। তারা যদি মাসিক ভিত্তিতে তার ওয়েবসাইটের ফি প্রদান করতে না ইচ্ছুক হয়, সেক্ষেত্রে, তারা ৫% কমিশন সিস্টেমে নির্দিষ্ট কিছু শর্তের বিনিময়ে আমাদের আইটি ফার্মের ওয়েবসাইট মার্কেটিং সেবা নিয়ে থাকতে পারেন।  ( শুধুমাত্র কমিশন সিস্টেমের ক্ষেত্রে, আমরা সমগ্র বাংলাদেশ থেকে খুঁজে এনে আপনার স্টুডেন্ট কালেকশন করে দেবার গ্যারান্টি দিয়ে থাকি। তবে আমাদেরকে আপনার ওয়েবসাইট মার্কেটিং চার্জ এর পাশাপাশি, মিডিয়া বাইং ফি অর্থাৎ ফেসবুক এড ক্যাম্পেন কস্ট আলাদাভাবে দিতে হবে।) বিস্তারিত জানতে এবং সার্ভিস নিতে আমাদের ওয়েবসাইট এর সার্ভিস পেজ (mahmudsir.com/services) ভিজিট করুন।

আমরা সাধারণত, আমাদের আইটি টিম নিয়োগ দিয়ে থাকি আমাদের শিক্ষার্থীদের মধ্যে থেকে। তাই, আইটি রিলেটেড দক্ষতা যেমন, ওয়েবসাইট ডিজাইন, গ্রাফিক ডিজাইন, সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট , এস.ই.ও প্রভৃতি প্রফেশনাল দক্ষতা অর্জনে আপনি মেনুবারে থাকা কোর্স লিস্ট থেকে আমাদের আইটি রিলেটেড প্রফেশনাল কোর্স গুলো করতে পারেন।

আর যদি আপনি একজন শিক্ষক হয়ে থাকেন, যিনি এই মূহূর্তে নিজের জন্য কোন ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান না, কিন্তু, আপনার অনলাইনে ক্লাস নেবার যথেষ্ট আগ্রহ আছে, সেক্ষেত্রে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আমরা আপনাকে আমাদের মাহমুদ স্যার লানিং প্লাটফর্ম এর শিক্ষক গ্রউপ (Teachers Zone)  এ নিয়ে অন্তর্ভুক্ত করব। আমাদের বিভিন্ন বিষয়ের উপর সাবজেক্ট টিচার প্রয়োজন। আপনি আমাদের লানিং প্লাটফর্ম থেকে নির্দিষ্ট শর্ত বজায় রেখে প্রতি স্টুডেন্ট সংখ্যার উপর নির্ভর করে উপযুক্ত সম্মানী পাবেন। মাহমুদ স্যার লানিং প্লাটফর্ম এ একজন শিক্ষক বা ট্রেইনার হিসেবে জয়েন করার জন্য আপনার সিভিটি এই ইমেইল এ পাঠিয়ে দিন (MahmudSir4English@gmail.com)। আপনার অভিজ্ঞতা ও দক্ষতার উপর ভিত্তি করে আমরা আপনার সাথে যোগাযোগ করব। 

মনে রাখবেন, বর্তমান পৃথিবীতে আমরা ভয়াবহ একটি গ্লোবাল প্যানডেমিক সিচুয়েশন এর মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। ভ্যাকসিন কবে নাগাদ জনসাধারণ পাবে তার কোন নিশ্চয়তা নেই। লকডাউন উঠে গেলেও সবাই কতটা নিরাপদ তার গ্যারান্টি কোন দেশের সরকারই দিতে পারবেনা। কারন, এই গ্যারান্টি দেওয়া কোন রাষ্ট্রপ্রধানের পক্ষেই এই মূহূর্তে সম্ভব নয়। তাই, নিজের পেশা ও প্রতিষ্ঠানের কথা বিবেচনা করে এই সিচুয়েশনে আপনার প্রতিষ্ঠান কে টিকিয়ে রাখতে অবশ্যই নিজের অনলাইন উপস্থিতি তৈরি করুন, । হতে পারে সেটা আপনার নিজের ওয়েবসাইট তৈরি করে অথবা আমাদের মাহমুদ স্যার লার্নিং প্লাটফর্মে। সিদ্ধান্ত আপনার! আপনি এগিয়ে যাবেন, নাকি পিছিয়ে থাকবেন। বিখ্যাত ই-কমার্স ওয়েবসাইট আলিবাবা এর প্রতিষ্ঠাতা জ্যাকমা সাথে কিছুটা সুর মিলিয়ে বলতে গেলে বলতে হবে, “পরিবর্তন আসবে, আপনি চাইলেও আসবে, আর না চাইলেও আসবে, আপনি এ বিষয়ে চিন্তা করলেও আসবে, আর আপনি চিন্তা না করলেও আসবে; কেউ না কেউ পরিবর্তন নিয়ে আসবে এবং সেটাই একসময় মডেল হবে। এখন কথা হল, পরিবর্তন না আপনি নিয়ে আসতে চান কিন? হ্যা, আপনার জন্য?”

এমনকি যদি আপনার নিউ মার্কেটে একটি দোকান বা শোরুম থাকে, কিন্তু লকডাউন পরিস্থিতির কারণে আপনি আপনার দোকান বা শোরুম থেকে যথেষ্ট পরিমাণে কাঙ্খিত প্রডাক্ট সেল করতে পারছেনা…., সেক্ষেত্রেও, আপনি আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। আমরা আপনাকে একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট তৈরি করে দিব বাজেটের ভেতরে যেভাবে ইতিমধ্যে বলেছি। আপনি সেখান থেকে সহজে আপনার দোকানের প্রডাক্টটি আপনার ওয়েবাসাইটের মাধ্যমেই সেল করতে পারবেন এবং এভাবে একজন বিজনেসম্যান হিসেবেও আপনি আপনার সমস্যা গুলো দূর করতে পারবেন, আমাদের ওয়েবসাইট মেকিং এন্ড মার্কেটিং সেবা নিয়ে। 

আসুন, আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা ও আমাদের যোগ্য রাষ্ট্রপ্রধানের (মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার) স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ায় এগিয়ে আসি। স্বপ্ন তখনই বাস্তবায়ন হবে, যখন আমরা আমাদের সবার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্রচেষ্টার মাধ্যমে আমাদের পেশা বা ছোট ছোট বিজনেসগুলোকে ডিজিটাল রূপ দিতে পারবো। আর আমাদের এই স্বপ্নগুলো বাস্তবায়নে আমাদের সবার গড়ে তোলা প্রতিষ্ঠান গুলোর জন্য একটি করে ডিজিটাল প্রেজেন্স বা ওয়েবসাইটের কোন বিকল্প নেই। বিশেষ করে চলমান আর্থ-সামাজিক পরিস্থিতির নিরিখে।

বি: দ্র:  মনের অজান্তে লেখাটিতে কোন প্রকার ভুল হয়ে থাকলে আমি আন্তরিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থী। অনুগ্রহ করে আমাকে জানাবেন আমার ইমেইল এড্রেস বা ফোনের মাধ্যমে অথবা আমার ফেসবুক পেজ মেসেজ অপশনের মাধ্যমে যা আপনি দেখতে পাচ্ছেন আপনার ডানে (আপনি কম্পিউটার ইউজার হলে) অথবা এই লেখাটির নিচে (আপনি স্মার্ট ফোন ইউজার হলে)। অনতিবিলম্বে ভুল শুধরে নেবার সর্বাত্বক চেষ্টা থাকবে।

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করতে ভুলবেন না। হয়তো এই লেখাটি আপনার কাজে না লাগলেও দেশের আরও দশজন মানুষের ঠিকই কাজে লাগবে। দেশের মানুষের উপকার হবে। এতটুকু সাপোর্ট তো আপনি দেশ ও দশকে দিতেই পারেন তাই না 🙂 আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ লেখাটি পড়ার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *